সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন

মানবিক গনমাধ্যমে স্বাধীন সাংবাদিকতা

মানবিক গনমাধ্যমে স্বাধীন সাংবাদিকতা

রাকিবুল ইসলাম : সাংবাদিকতা তত সময় পর্যন্ত নিরপেক্ষ যত সময় পর্যন্ত সেটা নেশা হিসেবে নিবেন। তাছাড়া যখনি সাংবাদিকতা পেশা হিসেবে নিবেন তখনি শুরু হবে দ্বিধা দন্ড। পেশা অর্থ উক্ত কর্ম থেকে যখনি কোন ব্যক্তি রুজিরোজগার করে জীবিকা নির্বাহ করে তাকেই পেশা বলা হয়।
এখন দেখা যাক সাংবাদিকতা পেশা হিসেবে নিলে কি কি করা জরুরি হয়। যেমন : নিয়োগ বাচাতে প্রতিষ্ঠানের পছন্দের পেক্ষিতে কাজ করতে হয়। পত্রিকার বিজ্ঞাপন যোগাড় করতে মরিয়া থাকতে হয়, সাংবাদিকের আসল সংবাদ কিন্তু সেটা বিজ্ঞানের মাধ্যমে যাচাই করা হয় কারা বেশি বিজ্ঞাপন দিবে তারাই বেষ্ট সাংবাদিক , অগ্রীম টাকা দিয়ে প্রতিনিধি নিয়োগ পাওয়ার পরে সব সময় অনন্য চাকুরির মতই বেতন বোনাস ও টাকা ইনকামের জন্য বেশি মরিয়া থাকতে দেখা যায়।পেশা হিসেবে সাংবাদিকতার আরেকটি বড় বিষয় হলো রাজনৈতিক নেতাদের পা চাটা গোলামী করা, কিছু বাছাইকৃত সাংবাদিক গবাদিপশুর মত পালিত হয়।গবাদি পশু দিয়ে যেমন হাল চাষ করা হয়,ঠিক তেমনি এই সকল পালিত সাংবাদিকদের লালন পালন করা হয়। এখান থেকে ওই সকল পালিত সাংবাদিকদের জীবিকা নির্বাহ হয়ে থাকে।
পত্রিকা ও টিভি চ্যানেল থেকে সর্বোচ একজন জেলা প্রতিনিধি যে সম্মানি পায় তাতে প্রতিনিধির যাতায়াত খরচ ও নাস্তা খরচটাও ঠিক মত হয়না।
এই পালিত সাংবাদিকদের দাদার দাদা, ওমকের তমক মারা গেলে চারিদিকে নিউজের ঝড় তুলে দেয়।মনে হয় আমেরিকার প্রেসিডেন্ট মারা গেছে। এখানে মুল প্রশ্ন তাহলে এই সকল সাংবাদিকদের ফ্ল্যাট বাড়ী, দামী গাড়ী, হাই সোসাইটির মত চলাফেরা কোথা থেকে আসে। যেহেতু এটাই তাদের পেশা, এই পেশা থেকে তারা কিভাবে এতো উচ্চাভিলাষী জিবন যাপন করে। এর সুষ্ঠু তদন্ত করে জাতির সামনে প্রকাশ করা হোক।

এবার দেখা যাক, স্বাধীন সাংবাদিকতা বা নেশা / সখের বসে সাংবাদিকতা করে, যেটাকে অনেকে বলে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে জনগন, সমাজ,দেশের জন্য এবং সংবাদের প্রতি ভালোবাসার টানে সাংবাদিকতা করেন। তাদের অবস্থা দেখা যাক:
প্রথমত এরা নিজের খেয়ে বনের মহিষ তারানোর মত অবস্থা।
সমাজের নেতৃত্ব স্থানীয়দের কাছে, গুরুত্বহীন।
প্রভাবশালীদের অপকর্ম, দূর্নিতী, সামাজিক অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচার করলেই। সকল ধরনের গালি গালাচ,হুমকি, মামলা,ইত্যাদি সহ্য করে সংবাদ প্রকাশ করে থাকে।
এবং কোন সমালোচক বা সাংবাদিক নেতা, রাজনৈতিক নেতা কেউ কখনো খোজ খবর নেই না। কিভাবে চলে তার পরিবার, তাদের ঘরে কি খাবার আছে। নিউজের খরচ কোথায় পাবে , এই ধরনের সাংবাদিক মারা গেলেও হয়তো অনেকে জানতেও পারে না।

এই সংবাদটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © swadeshbarta24.com
Design & Developed BY Anamul Haque Rasel